থাইরয়েড

থাইরয়েড
থাইরয়েড

থাইরয়েড হলো একটি গ্ল্যান্ড বা গ্রন্থি এটি আমাদের গলার সামনে থাকে। এটি দেখতে প্রজাপতির মতো, এটি থেকে এক ধরনের হরমোন রস নিঃসৃত হয়। যেটি রক্তের মাধ্যমে গিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশের কার্যক্রম সাধন করে।

থাইরয়েড হরমোনের কাজ হলো থাইরয়েড গ্রন্থি হরমোন তৈরি করে, আপনার শরীরের বিপাক, বৃদ্ধি, বিকাশ এবং শরীরের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ অংশ নিয়ন্ত্রণ করে।

সাধারণত একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের থাইরয়েডের ওজন হয় ২৫ গ্রাম এবং থাইরয়েড এর প্রতিটি লোব  লম্বা ৫ সেন্টিমিটার এবং ৩ সেন্টিমিটার প্রস্থ এবং দুই সেন্টিমিটার পুরু হয়। প্রায় ২০ হাজার প্রোটিন কোডিং জিন প্রকাশ পাই এবং আমাদের শরীরের মধ্যে এদের প্রায় ৭০ শতাংশ থাইরয়েড প্রকাশ করে।

থাইরয়েড এর সমস্যাঃ 

থাইরয়েড সমস্যা বলতে আমরা সাধারণত হাইপোথাইরিজম এবং হাইপার থাইরয়েডিজম কে বুঝি। কিন্তু, আপনার থাইরয়েড সঠিকভাবে কাজ না করলে, ক্লান্তি, বিষণ্নতা, চুল পড়া এবং ওজন বৃদ্ধির মতো উপসর্গ দেখা দিতে পারে।

থাইরয়েড এর হাইপোথাইরয়েডিজম সমস্যাঃ 

হাইপোথাইরয়েডিজম হল আপনার শরীরে যখন থাইরয়েড হরমোনের পরিমাণ কমে যায় অর্থাৎ যখন আপনার থাইরয়েড গ্রন্থি পর্যাপ্ত হরমোন তৈরি না করে তখন তাকে হাইপোথাইরয়েডিজমহাইপোথাইরয়েডিজম এর ফলে শক্তির মাত্রা কম হয়, ওজন বৃদ্ধি পায় এবং মানসিক কাজ ধীর হয়। 

থাইরয়েড এর হাইপারথাইরয়েডিজম সমস্যাঃ 

যখন আপনার শরীরের থাইরয়েড হরমোনের পরিমাণ বেড়ে যায় অর্থাৎ যখন আপনার থাইরয়েড গ্রন্থি খুব বেশি পরিমাণ থাইরয়েড হরমোন তৈরি করে তখন তাকে হাইপারথাইরয়েডিজম। হাইপারথাইরয়েডিজম হলে দ্রুত হৃদস্পন্দন, উচ্চ রক্তচাপ এবং উদ্বেগ হয়।

থাইরয়েড
থাইরয়েড

থাইরয়েড এর লক্ষণ 

থাইরয়েডের লক্ষণগুলোর মধ্যে সাধারণ কিছু লক্ষণ গুলো হলো  ক্লান্তি, বিষণ্নতা, চুল পড়া, ওজন বৃদ্ধি, এবং  দ্রুত হৃদস্পন্দন, উচ্চ রক্তচাপ এবং উদ্বেগ, অনিয়মিত মাসিক ইত্যাদি লক্ষণ প্রকাশ পেতে পারে। এই লক্ষণগুলো প্রকাশ পেলে বুঝতে হবে যে আপনার থাইরয়েড গ্রন্থি বেশি হরমোন তৈরি করছে অথবা থাইরয়েড গ্রন্থির কম হরমোন তৈরি করছে। অর্থাৎ আপনার হাইপোথাইরয়েডিজম এবং হাইপারথাইরয়েডিজম এর মধ্যে একটি হয়েছে।

থাইরয়েড ক্যান্সার : থাইরয়েড ক্যান্সার হলো থাইরয়েড গ্রন্থির কোনো অংশের কোষসংখ্যা অনিয়ন্ত্রিতভাবে বৃদ্ধিকে বোঝায়। তবে মনে রাখবেন থাইরয়েড গ্রন্থি বা এর অংশবিশেষ ফুলে ওঠা মানেই যে ক্যান্সার হয়েছে তা ঠিক নয়।

থাইরয়েড টেস্টঃ 

থাইরয়েড টেস্ট এর বিশেষ নামগুলো হলো TSH, T4, T3 ।

  • TSH – থাইরয়েড উদ্দীপক হরমোন, TSH পিটুইটারি গ্রন্থি দ্বারা উত্পাদিত হয়। 
  • T4 – বিনামূল্যে থাইরক্সিন
  • T3 –  মোট ট্রাইওডোথাইরোনিন এর মাত্রা পরিমাপ করে। T3 উত্পাদন নিয়ন্ত্রণ করে। 

হাইপোথাইরয়েডিজম হলে আমাদের TSH  বাড়তে থাকে এবং হাইপারথাইরয়েডিজম যদি হয় অর্থাৎ রক্তে থাইরয়েড এর পরিমান যদি বেশি থাকে তাহলে TSH সাধারণত কম হয়। 

বেশিরভাগ ল্যাবরেটরীতে TSH এর নরমাল রেঞ্জ .5 থেকে 4.5 হয়ে থাকে । তবে TSH এর পরিমাণ   ক্ষেত্রবিশেষে কম বেশি হতে পারে।  

বাচ্চাদের ক্ষেত্রে জন্মের পরে TSH স্বাভাবিক ভাবে বাড়ে। শিশু ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর ৭২ ঘন্টা পর নরমাল TSH এর পরিমাণ ২০ ধরা হয়। 

 বিনামূল্যে T4 এবং T3 উভয়ই থাইরয়েড গ্রন্থি দ্বারা উত্পাদিত হয়।

থাইরয়েড পরীক্ষার সময় এবং রোগীর করণীয়নঃ

  • থাইরয়েড টেস্ট করার সবচেয়ে উত্তম সময় সকালবেলা এবং খালি পেটে।
  • মহিলাদের পিরিয়ড চলাকালীন সময়ে থাইরয়েড পরীক্ষা করা যাবে না। কারণ দূরত্ব হরমোন লেভেল পরিবর্তন হয়।
  • থাইরয়েড পরীক্ষা করার পূর্বে কোন প্রকার সাপ্লিমেন্ট খেলে তা ডাক্তারকে জানাতে হবে।
  • দিনের বেলায় থাইরয়েড হরমোন টেস্ট করা যাবে না। 
  • মহিলাদের প্রেগনেন্সির ফলে পরীক্ষার রেজাল্ট পজিটিভ নেগেটিভ আসতে পারে।

থাইরয়েড সমস্যা হলে যেসকল খাবার খাবেনঃ

  • সামুদ্রিক সবজি
  • প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার
  • সবুজ শাকসবজি

থাইরয়েডের বিখ্যাত তিনটি ওষুধের নামঃ

থাইরয়েড হরমোন সমস্যার ক্ষেত্রে যে ওষুধগুলো বেশি ব্যবহৃত হয়। যথাঃ  থাইরক্স, থাইরিন, থাইরোলার ইত্যাদি ওষুধ। থাইরয়েড ওষুধ খাওয়ার দু’ঘণ্টা পরে খাবার খাবেন। তবে বিশেষ করে আপনার একজন হরমোন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। 

আরো পড়ুনঃ

থাইরয়েড FAQ

থাইরয়েড কি?

থাইরয়েড হলো একটি গ্ল্যান্ড বা গ্রন্থি এটি আমাদের গলার সামনে থাকে। এটি দেখতে প্রজাপতির মতো, এটি থেকে এক ধরনের হরমোন রস নিঃসৃত হয়। যেটি রক্তের মাধ্যমে গিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশের কার্যক্রম সাধন করে।

থাইরয়েড রোগ কি?

থাইরয়েড রোগ হল থাইরয়েড হরমোনের পরিমাণ কমে যাওয়া এবং বেড়ে যাওয়াকে বোঝায় অর্থাৎ থাইরয়েড এর কার্যক্ষমতা কমে যাওয়া এবং বেড়ে যাওয়াকে বোঝাই। যখন কমে যায় তখন তাকে হাইপোথাইরয়েডিজম বলে এবং বেড়ে যাওয়াকে বলা হয় হাইপারথাইরয়েডিজম।

থাইরয়েড কি ভালো হয়?

হ্যাঁ থাইরয়েডের সমস্যা ভালো হয়। যদি আপনি সঠিক সময়ে সঠিক ডাক্তার দিয়ে চিকিৎসা করেন এবং নিয়মিত ওষুধ সেবন করেন।

থাইরয়েড নরমাল কত?

বেশিরভাগ ল্যাবরেটরীতে TSH এর নরমাল রেঞ্জ .5 থেকে 4.5 হয়ে থাকে । তবে TSH এর পরিমাণ ক্ষেত্রবিশেষে কম বেশি হতে পারে। শিশু ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর ৭২ ঘন্টা পর নরমাল TSH এর পরিমাণ 20 ধরা হয়।

থাইরয়েড রোগীর খাবার তালিকা কি কি খাবেন?

✔ সামুদ্রিক সবজি ✔ প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার ✔সবুজ শাকসবজি

থাইরয়েড লক্ষণ কি?

সাধারণ কিছু লক্ষণ গুলো হলো ক্লান্তি, বিষণ্নতা, চুল পড়া, ওজন বৃদ্ধি, এবং দ্রুত হৃদস্পন্দন, উচ্চ রক্তচাপ এবং উদ্বেগ, অনিয়মিত মাসিক ইত্যাদি লক্ষণ প্রকাশ পেতে পারে।

থাইরয়েড টেস্ট খরচ?

থাইরয়েড টেস্ট খরচ 500 থেকে 1000 টাকার মধ্যে হয়ে যায়।

থাইরয়েড গ্রন্থির ছবি?