শেষ হয়ে যেতে পারতো মেসির ক্যারিয়ার


শুক্রবার ভোরে কোপা আমেরিকার শিরোপা জেতার পর প্রথমবারের মতো জাতীয় দলের জার্সিতে খেলতে নেমেছিলেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। কিন্তু বিপজ্জনক এক ট্যাকলের কারণে এই ম্যাচটিই হয়ে যেতে পারতো মেসির ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচ। অল্পের জন্য বড়সড় ইনজুরির হাত থেকে বেঁচে গেছেন তিনি।

ভেনেজুয়েলার মাঠে খেলতে গিয়ে ম্যাচটিতে ৩-১ গোলে জিতেছে আর্জেন্টিনা। দলের পক্ষে গোল তিনটি করেছেন লাউতারো মার্টিনেজ, হোয়াকিন কোররেয়া ও অ্যাঞ্জেল কোররেয়া। তবে আলবিসেলেস্তেরা গোলের খাতা খোলার আগেই দশজনের দলে পরিণত হয়েছিল ভেনেজুয়েলা।

ঘটনা ম্যাচের ২৯তম মিনিটের। সাজানো গোছানো আক্রমণে সতীর্থদের নিয়ে ডি-বক্সে ঢোকার মুখে ছিলেন মেসি। আলতো টোকায় তিনি বল বাড়িয়ে দেন রদ্রিগো ডি পলের দিকে।

কিন্তু তবুও তার দিকে ক্ষিপ্র গতিতে ছুটে এসে ঠিক হাঁটু বরাবর লাথি মেরে বসেন ভেনেজুয়েলার ডিফেন্ডার আদ্রিয়ান মার্টিনেজ। মাত্র চার মিনিট আগেই আরেক ডিফেন্ডার জোসেফ ভেলাজকুয়েজের জায়গায় নামানো হয়েছিল আদ্রিয়ান মার্টিনেজকে।

কিন্তু ৪ মিনিটের মাথায়ই ম্যাচের সবচেয়ে ন্যাক্কারজনক ঘটনাটির জন্ম দেন তিনি। আদ্রিয়ানের লাথি খেয়ে অনেকটা বেঁকে যায় মেসির পা, মাটিতে গড়াগড়ি খেতে থাকেন তিনি।

ডাগআউট থেকে ছুটে আসে আর্জেন্টিনার মেডিকেল টিম। বেশ কিছুক্ষণ ধরে চলে মেসির প্রাথমিক চিকিৎসা। কয়েক মিনিট পর নিজের পায়ে উঠে দাঁড়ান আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

কিন্তু আদ্রিয়ানের লাথিটা ঠিক যেখানে লেগেছে, সেই জায়গায় একই ধরনের ট্যাকলের কারণে ক্যারিয়ার ঝুঁকির মুখে পড়েছে অনেক খেলোয়াড়ের। এই বিপজ্জনক ট্যাকলে রেফারি প্রথমে শুধু ফাউলের বাঁশি বাজান। তবে ভিডিও এসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর) তার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

ভিএআরের রিপ্লেতে দেখা যায়, ডি-বক্সের ঠিক বাইরে করা মার্টিনেজের ফাউলটি ছিল বেশ ভয়াবহ। তাই সরাসরি লাল কার্ড দেখানো হয় মার্টিনেজকে, দশজনের দলে পরিণত হয় স্বাগতিকরা। ম্যাচ চলাকালীন সময়েই আদ্রিয়ানের এই বাজে ফাউলের কড়া সমালোচনা শুরু হয়ে যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

সেই ফাউলের ছবি ও ভিডিও আপলোড করে ভেনেজুয়েলার ডিফেন্ডারের ওপর রাগ ঝারতে থাকেন মেসির ভক্ত-সমর্থকরা। তবে মেসির বড় কিছু না হওয়ায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন সবাই।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন





Source link